1. admin@rangpurtoday.com : rangpurt :
ক্যাপ্টেন নওশাদ কাইউমের মৃত্যুতে বিএনএসও এর শোক - রংপুর টুডে
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২৩ অপরাহ্ন

ক্যাপ্টেন নওশাদ কাইউমের মৃত্যুতে বিএনএসও এর শোক

রংপুর টুডে
  • সময়ঃ মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউমের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল স্টুডেন্ট অর্গানাইজেশন (বিএনএসও) এর প্রতিষ্ঠা আহবায়ক মোঃ আব্দুল্লাহ আল মাসুদ  রানা।

এক শোক বার্তায় মোঃ আব্দুল্লাহ আল মাসুদ  রানা জানান, নওশাদ কাইয়ুমের মৃত্যুতে আমরা একজন মেধাবী ও দক্ষ পাইলটকে হারালাম। মন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

সোমবার (৩০ আগস্ট) ভারতের নাগপুরের কিংসওয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সূত্রে জানা যায়, সবকিছু ঠিক থাকলে আজ ক্যাপ্টেন নওশাদ কাইয়ুমের মরদেহ দেশে আনা হতে পারে। কাতারের দোহা থেকে ঢাকাগামী বিমানের ফিরতি ফ্লাইটে তার মরদেহ ভারতের নাগপুর থেকে দেশে আনার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

২৭ আগস্ট সকালে ওমানের মাস্কাট থেকে শতাধিক যাত্রী নিয়ে বিজি-০২২ ফ্লাইটটি নিয়ে ঢাকা আসার পথে ভারতের আকাশে থাকা অবস্থায় ক্যাপ্টেন নওশাদ অসুস্থ বোধ করেন। সঙ্গে সঙ্গেই তিনি কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের (এটিসি) কাছে ফ্লাইটটিকে জরুরি অবতরণের অনুরোধ জানান। একই সময় তিনি কো-পাইলটের কাছে ফ্লাইটের নিয়ন্ত্রণ হস্তান্তর করেন। কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল ফ্লাইটটিকে নিকটস্থ নাগপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করার নির্দেশ দিলে কো-পাইলট ক্যাপ্টেন মুস্তাকিম ফ্লাইটটি অবতরণ করান।

বোয়িং ৭৩৭-৮০০ মডেলের উড়োজাহাজটির এই ফ্লাইটে ১২৪ জন যাত্রী ছিলেন। তারা সবাই নিরাপদে ছিলেন। শুক্রবারই আরেকটি ফ্লাইটে করে আট সদস্যের একটি উদ্ধারকারী দল নাগপুরে যায়। ওইদিন মধ্যরাতের পর বিমানটিকে যাত্রীসহ ঢাকার বিমানবন্দরে নিয়ে আসা হয়।

ফ্লাইটটি অবতরণের পর ক্যাপ্টেন নওশাদকে নাগপুরের কিংসওয়ে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে ২ দিন চিকিৎসার পর অবস্থার অবনতি হলে রোববার তাকে হাসপাতালের সার্জিক্যাল ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (এসআইসিইউ) কোমায় নেওয়া হয়। সেখানে তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। হার্ট অ্যাটাকের পর তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয় বলে জানান হাসপাতালের চিকিৎসকরা।শুক্রবার (২৯ আগস্ট) রাতে নাগপুরের কিংসওয়ে হাসপাতালে যান ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউমের দুই বোন। তারা চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে ক্যাপ্টেন নওশাদের ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা চালু রাখার পক্ষে মত দেন। তবে চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে ৩০ আগস্ট বেলা ১১টার দিকে না ফেরার দেশে চলে যান ক্যাপ্টেন নওশাদ।

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এই ক্যাটেগরির আরো খবর
© All rights reserved 2021 | পারফেক্ট  মিডিয়া কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Theme Customized BY LatestNews